মঙ্গলবার , ২৩ এপ্রিল ২০১৯ | সকাল ১১:০২

এইমাত্র পাওয়া:

৥ আমার বাংলা TV: যথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় আজ রোববার পবিত্র শবেবরাত ৥
 ৥ আমার বাংলা TV: শ্রীলঙ্কায় সিরিজ বোমা হামলায় শেখ সেলিমের নাতি নিহত ৥
 ৥ আমার বাংলা TV: শ্রীলংকায় হামলা নিয়ে আহমদ শফীর বিবৃতি ৥
৥ আমার বাংলা TV: সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৥
৥ আমার বাংলা TV: স্ত্রীর পরকীয়ায় খুন হন দলিল লেখক রিয়াজ ৥
৥ আমার বাংলা TV: ঠাকুরগাঁওয়ে বিএসএফের গুলিতে বাংলাদেশি নিহত ৥
৥ আমার বাংলা TV: আফগানিস্তানের বিশ্বকাপ দল ঘোষণা ৥
৥ আমার বাংলা TV: লক্ষীপুরে ৭ বছরের শিশু ধর্ষণের অভিযোগ, আটক ১ ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৬৭ ৥
৥ আমার বাংলা TV: পদ্মা সেতুর ১৬৫০ মিটার দৃশ্যমান হচ্ছে মঙ্গলবার ৥
৥ আমার বাংলা TV: শবেবরাতের নামাজের জন্য বেরিয়ে সহপাঠীদের হাতে খুন স্কুলছাত্র ৥
৥ আমার বাংলা TV: বাস কাউন্টারে আটকে রেখে নারীযাত্রীকে গণধর্ষণ ৥
৥ আমার বাংলা TV: লোহাগাড়ায় বাড়িতে হাত-পা বেঁধে ছাত্রীকে ধর্ষণ ৥
৥ আমার বাংলা TV: ধর্ষণের মামলায় অনেক অভিযুক্ত পার পেয়ে যাচ্ছে ৥
৥ আমার বাংলা TV: রোবট লি হাঁটছে মানুষের মতো, কথা বলছে বাংলায় ৥
৥ আমার বাংলা TV: টেন্ডুলকারের বিশ্বকাপ পরামর্শ চান পাকিস্তানি ওপেনার ৥
৥ আমার বাংলা TV: জায়ান চৌধুরীর লাশ মঙ্গলবার দেশে আনা হচ্ছে : শিল্পমন্ত্রী ৥
৥ আমার বাংলা TV: জেলে বসে মরে যাবেন তবু আপোস করবেন না ৥
৥ আমার বাংলা TV: পরিকল্পিতভাবে গণতন্ত্রকে হত্যা করছে সরকার : মির্জা ফখরুল ৥
৥ আমার বাংলা TV: শ্রীলংকার সরকার নতুন করে কারফিউ ঘোষণা করেছে ৥
৥ আমার বাংলা TV: পর্দার প্রেসিডেন্ট থেকে বাস্তবের প্রেসিডেন্ট ৥
৥ আমার বাংলা TV: আন্দোলনেই খালেদা জিয়ার মুক্তি হবে : খন্দকার মোশাররফ ৥
৥ আমার বাংলা TV: কোহলিদের সঙ্গে তীরে এসে তরী ডুবল চেন্নাইয়ের ৥
৥ আমার বাংলা TV: প্রধানমন্ত্রীকে দেখলেই দাদু বলে জড়িয়ে ধরত জায়ান ৥
৥ আমার বাংলা TV: শেখ সেলিমের জামাতা মশিউল হক চৌধুরী প্রিন্স ২ পা ড্যামেজ ৥
৥ আমার বাংলা TV: লক্ষ্মীপুরে দগ্ধ রাউজানের সেই তরুণী আর নেই ৥
৥ আমার বাংলা TV: ভোলায় ছাত্রলীগ নেতার মোটরসাইকেল জব্দ, পুলিশের বিচার দাবি ৥
৥ আমার বাংলা TV: কলম্বো বিমানবন্দর থেকে পাইম বোমা উদ্ধার ৥
৥ আমার বাংলা TV: শ্রীলঙ্কায় বোমা হামলা : মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৯০ ৥
৥ আমার বাংলা TV: উখিয়ায় বিজিবির সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ২ রোহিঙ্গা মাদক কারবারি নিহত ৥
৥ আমার বাংলা TV: লক্ষ্মীপুরে তরুণী আগুনে দগ্ধ ৥
৥ আমার বাংলা TV: মাদ্রিদে গ্রেটার ঢাকা অ্যাসোসিয়েশনের বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত ৥
৥ আমার বাংলা TV: শ্রীলঙ্কায় এবার মসজিদে পেট্রোল বোমা হামলা ৥
৥ আমার বাংলা TV: নুসরাত হত্যাকাণ্ড: আদালতে দোষ স্বীকার জোবায়েরের ৥
৥ আমার বাংলা TV: বাংলাদেশ ও ব্রুনাইয়ের মধ্যে ৭টি চুক্তি স্বাক্ষরিত ৥
৥ আমার বাংলা TV: পদ শূন্য নেই তবুও শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ৥
৥ আমার বাংলা TV: চাঁদপুরে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে নির্মিত হচ্ছে বহুতল ভবন ৥

সারাদেশে শিক্ষা জরিপ শুরু

 

আমার বাংলা টিভি :: সারাদেশের স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজ পর্যায়ে শিক্ষা জরিপ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। জরিপ পরিচালনা করছে বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস)। অনলাইনে পরিচালিত এ জরিপের মাধ্যমে ৪০ হাজার মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

ব্যানবেইসের পরিচালক মো. ফসিউল্লাহ জানান, আজ ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত বার্ষিক শিক্ষা জরিপ-২০১৬ এর আওতায় তথ্য সংগ্রহ করা হবে। অনলাইনে এই জরিপ কাজ পরিচালিত হবে। এরই মধ্যে অনলাইনে জরিপে অংশ নিতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও দায়িত্বশীলদের দিক-নির্দেশণা দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, প্রাথমিকোত্তর সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে উল্লিখিত সময়ের মধ্যে ব্যানবেইসের ওয়েবসাইটে অনলাইন সার্ভে মেন্যুর ই-সার্ভেতে ক্লিক করে লগইন করে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের তথ্য হালনাগাদ করার জন্য বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে ইউজার আইডি হবে প্রতিষ্ঠানের ‘ইআইআইএন’ এবং পাসওয়ার্ড হবে ইংরেজিতে ৫৩২৬৮৮।

বার্ষিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জরিপ ফরম-২০১৬-এর জন্য অনলাইনে প্রয়োজনীয় লিংক ও ফরম দেওয়া আছে। এখান থেকে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো নির্দিষ্ট লিংকে এবং ফরম সংগ্রহ করে নিজেদের তথ্য সরবরাহ করবে। ব্যানবেইস নভেম্বর থেকে প্রাপ্ত তথ্যগুলো যাচাই-বাছাই ও সর্টিং করবে।

জরিপ পরিচালনা প্রতিষ্ঠানের এই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জরিপে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অংশগ্রহণ করার জন্য পুন:আহ্বাণ জানিয়েছেন।

এর আগে ২০১৫ সালে সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ওপর অনলাইনে যে জরিপ চালায় বাংলাদেশ ব্যানবেইস, সেখানে দেখানো হয় বাংলাদেশ গত ৩৩ বছরে মাধ্যমিক থেকে উচ্চশিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বেড়েছে ১৬ হাজার ৯১০টি। প্রতিষ্ঠান বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে শিক্ষার্থীর সংখ্যাও। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বাড়ার সঙ্গে মান সেভাবে বাড়েনি।

গত বছরের মার্চে প্রকাশিত এই ‘বাংলাদেশ শিক্ষা পরিসংখ্যান ২০১৫’ তে আরো বলা হয়, ১৯৮২ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত মাধ্যমিক থেকে উচ্চশিক্ষা স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বৃদ্ধির একটি তালিকা প্রকাশ করে। এ সময়ে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা। ১৯৮২ সালে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৯৩টি বেড়ে ২০১৫ সালে তা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ২২৭টিতে। ৩৩ বছরে মাধ্যমিক স্কুল ৮ হাজার ৯৬০ থেকে বেড়ে হয়েছে ১৯ হাজার ৭২৬, কলেজ ৫০৯টি থেকে বেড়ে হয়েছে ৪ হাজার ১১৩টি। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সাতটি থেকে বেড়ে হয়েছে ৩৮টি। ১৯৯০ সালের আগে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় না থাকলেও এখন দেশে ৯১টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। তবে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ওপর ব্যানবেইস জরিপ পরিচালনা না করার কারণে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তথ্য প্রতিষ্ঠানটি দিতে পারেনি।

এ বিষয়ে ব্যানবেইসে পরিচালক পরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেন, চাহিদার সঙ্গে সবকিছুর জোগান বাড়বে সেটিই স্বাভাবিক। ১৯৮২ সালের পর থেকে বাংলাদেশ জনসংখ্যা বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। এই বিশাল জনগোষ্ঠীকে শিক্ষা দিতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোক্তা এগিয়ে এসেছে। চাহিদার আলোকেই এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেড়েছে মনে করেন তিনি। তিনি জানান, যে পরিমাণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেড়েছে সে পরিমাণ মানসম্মত শিক্ষক বাড়েনি। একই সঙ্গে শিক্ষার মানও বাড়েনি।

শিক্ষা রিপোর্টে দেখা যায়, শিক্ষার বিভিন্নস্তরের মধ্যে সরকারি কলেজগুলোতে ছাত্র-শিক্ষকের অনুপাতের বৈষম্য সবচেয়ে বেশি। সরকারি কলেজে ১০৫ জন ছাত্রের জন্য শিক্ষক রয়েছেন একজন, অর্থাৎ এ ক্ষেত্রে অনুপাত ১:১০৫। ৩০২টি সরকারি কলেজে শিক্ষার্থী ১৩ লাখ ৫৬ হাজার ৯৬২ ও শিক্ষক ১২ হাজার ৯২৬ জন। বেসরকারির চেয়ে সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষকের তুলনায় ছাত্রের সংখ্যা অনেক বেশি। প্রাথমিক সরকারি বিদ্যালয়ে একজন শিক্ষকের বিপরীতে ছাত্র ৪৩, সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে একজন শিক্ষকের বিপরীতে শিক্ষার্থী ৪১, মাদরাসায় একজন শিক্ষকের বিপরীতে ছাত্র ৮৪ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪০ শিক্ষার্থীর বিপরীতে শিক্ষক একজন।

অথচ ২০১০ সালে জাতীয় শিক্ষানীতিতে ৩০ ছাত্রের জন্য একজন শিক্ষক নিশ্চিত করতে হবে। অন্যদিকে মাধ্যমিকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর অনুপাত দিন দিন বেড়েই চলছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, মাধ্যমিক স্তরে ২০১১ সালে ছাত্র-শিক্ষক অনুপাত ছিল ১:৩০, ২০১২ সালে ১:৩৬, ২০১৩ সালে ১:৩৭ ও ২০১৪ সালে এসে দাঁড়ায় ১:৩৯।

তবে গত এক দশকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। ২০১০ সালে ৫৯ দশমিক ২১ শতাংশ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কম্পিউটার থাকলেও ২০১৫ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী সেখানে ৮২ দশমিক ২১ শতাংশ বিদ্যালয়ে এ সুবিধা রয়েছে। কম্পিউটার সুবিধা ২০১১ সালে ৬৫ দশমিক ০৬, ২০১২ সালে ৭০ দশমিক ৩ থেকে বেড়ে ২০১৪ সালে এসে দাঁড়িয়েছে ৮০ দশমিক ৩৫ শতাংশ। ২০১০ সালে মাধ্যমিকের ১৮ দশমিক ১৮ শতাংশ প্রতিষ্ঠানে ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেও গত বছর তা ৭২ দশমিক ৯৮ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। ২০১২ সাল থেকে মাধ্যমিক স্কুলে মাল্টিমিডিয়া সুবিধা অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে। বর্তমানে ৭১ দশমিক ৯০ শতাংশ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়া শ্রেণিকক্ষ রয়েছে।

ব্যানবেইসের পরিসংখ্যানে আরো দেখানো হয়, দেশের মোট ২৬ হাজার ৭৬টি প্রতিষ্ঠানের ৪ লাখ ৭৯ হাজার ২৮৫ শিক্ষক-কর্মচারী এমপিও (সরকারি বেতন-ভাতার অংশ) পাচ্ছেন। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে স্কুল ১৬ হাজার ১০২, মাদরাসা ৭ হাজার ৬১১ ও কলেজ রয়েছে ২ হাজার ৩৬৩টি। এমপিওপ্রাপ্তদের মধ্যে শিক্ষক তিন লাখ ৭৭ হাজার ৫৬৮ জন ও কর্মচারী এক লাখ এক হাজার ৭১৭ জন।

About amarbangla

amarbanglanews

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com