মঙ্গলবার , ১৩ নভেম্বর ২০১৮ | সকাল ১১:৪৬

এইমাত্র পাওয়া:

৥ আমার বাংলা TV: চট্রগ্রামের প্যানেল মেয়র জননেতা চৌধুরী হাসান মাহমুদ হাসনি নৌকার প্রতীকে মনোনয়ন ৥
৥ আমার বাংলা TV: ডা. জোবাইদা রহমানও আলোচনায় ৥
৥ আমার বাংলা TV: বঙ্গবন্ধু ও প্রধানমন্ত্রীর ছবি দিয়ে অস্ট্রেলিয়ান ডাকটিকিট প্রকাশ ৥
৥ আমার বাংলা TV: আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী জামিনে মুক্তি পেয়েছেন ৥
৥ আমার বাংলা TV: বেগম খালেদা জিয়া ঐক্য নিয়ে এগিয়ে যেতে বলেছেন: ফখরুল ৥
৥ আমার বাংলা TV: চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্রের সিদ্ধান্ত নেবেন রিটার্নিং কর্মকর্তা ৥
৥ আমার বাংলা TV: জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে চান না জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীর যাত্রাবাড়ী আইডিয়াল স্কুল অ্যান্ড কলেজে দুদকের অভিযান ৥
৥ আমার বাংলা TV: জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার পর সোমবার সকালে প্রথম বৈঠকে ৥
৥ আমার বাংলা TV: নির্বাচনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট নিয়োগের নির্দেশ ইসির ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে ৫ ডাকাত আটক ৥
৥ আমার বাংলা TV: বিএনপির মনোনয়ন ফরম বিতরণের সময় বৃদ্ধি, প্রথম দিনে বিক্রি ১৩২৬ ৥
৥ আমার বাংলা TV: আ’লীগের মনোনয়ন কিনছেন চিত্রনায়ক শাকিব খান ৥
৥ আমার বাংলা TV: উলিপুরে পাওনা টাকা চাওয়ায় বিধবাকে খুঁটিতে বেঁধে নির্যাতন ৥
৥ আমার বাংলা TV: সুনামগঞ্জে বিএনপি থেকে শতাধিক নেতাকর্মীর পদত্যাগ ৥
৥ আমার বাংলা TV: দেশের সব টিভিতে তরুণদের সঙ্গে সরাসরি কথা বলবেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ৥
৥ আমার বাংলা TV: বড়লেখায় স্ত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় প্রান্তকে হত্যা করে ভাই ৥
৥ আমার বাংলা TV: ইসির নির্দেশাবলি পরিপূর্ণ মাত্রায় পালন করব: র‌্যাব ডিজি ৥
৥ আমার বাংলা TV: বিএনপির মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু: বেগম খালেদা জিয়ার জন্য ৩ আসন ৥
৥ আমার বাংলা TV: মাগুরা ধানক্ষেত থেকে যুবকের লাশ উদ্ধা ৥
৥ আমার বাংলা TV: চট্টগ্রামের কর্ণফুলীতে ট্রাকচাপায় সিএনজি চালকের মৃত্যু ৥
৥ আমার বাংলা TV: ৫ জনের সম্পদের তথ্য জানতে সরকারি দফতরে দুদকের চিঠি ৥
৥ আমার বাংলা TV: আশুলিয়ায় মস্তকবিহীন ৭ টুকরা লাশ উদ্ধার ৥
৥ আমার বাংলা TV: মোবাইল কোম্পানির বেআইনি কর্মকাণ্ড বন্ধে হাইকোর্টে রিট ৥
৥ আমার বাংলা TV: পরিবেশ সৃষ্টি না হলে নির্বাচনে যাওয়ার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা: মির্জা ফখরুল ৥
৥ আমার বাংলা TV: রংপুরে ‘পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে ডাকাত’ নিহত ৥
৥ আমার বাংলা TV: মোবাইল ফোনের প্যাকেজ বন্ধে হাইকোর্টে রিট ৥
৥ আমার বাংলা TV: টাঙ্গাইল-২ আসনে আ.লীগের মনোনয়নপত্র কিনলেন ১৫ জন ৥
৥ আমার বাংলা TV: কোরআনি শিক্ষাকে কাজে লাগানোর দায়িত্ব আমাদের :এটি ঈমানি দায়িত্ব ৥
৥ আমার বাংলা TV: মাগুরায় ৫৫০ পিস ইয়াবাসহ দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ ৥
৥ আমার বাংলা TV: মেসির জোড়া গোলেও হার বার্সার ৥
৥ আমার বাংলা TV: নতুন মার্কিন রাষ্ট্রদূত ঢাকা আসছেন ১৮ নভেম্বর ৥
৥ আমার বাংলা TV: উড়ছে সোলারির রিয়াল ৥
৥ আমার বাংলা TV: ম্যানইউকে উড়িয়ে ‘ডার্বি’ জয় সিটির ৥

সারাদেশে শিক্ষা জরিপ শুরু

 

আমার বাংলা টিভি :: সারাদেশের স্কুল, মাদ্রাসা ও কলেজ পর্যায়ে শিক্ষা জরিপ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। জরিপ পরিচালনা করছে বাংলাদেশ শিক্ষা তথ্য ও পরিসংখ্যান ব্যুরো (ব্যানবেইস)। অনলাইনে পরিচালিত এ জরিপের মাধ্যমে ৪০ হাজার মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

ব্যানবেইসের পরিচালক মো. ফসিউল্লাহ জানান, আজ ২০ সেপ্টেম্বর থেকে ২০ অক্টোবর পর্যন্ত বার্ষিক শিক্ষা জরিপ-২০১৬ এর আওতায় তথ্য সংগ্রহ করা হবে। অনলাইনে এই জরিপ কাজ পরিচালিত হবে। এরই মধ্যে অনলাইনে জরিপে অংশ নিতে সংশ্লিষ্ট শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান ও দায়িত্বশীলদের দিক-নির্দেশণা দেওয়া হয়েছে।

তিনি জানান, প্রাথমিকোত্তর সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানকে উল্লিখিত সময়ের মধ্যে ব্যানবেইসের ওয়েবসাইটে অনলাইন সার্ভে মেন্যুর ই-সার্ভেতে ক্লিক করে লগইন করে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের তথ্য হালনাগাদ করার জন্য বলা হয়েছে। এক্ষেত্রে ইউজার আইডি হবে প্রতিষ্ঠানের ‘ইআইআইএন’ এবং পাসওয়ার্ড হবে ইংরেজিতে ৫৩২৬৮৮।

বার্ষিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জরিপ ফরম-২০১৬-এর জন্য অনলাইনে প্রয়োজনীয় লিংক ও ফরম দেওয়া আছে। এখান থেকে সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানগুলো নির্দিষ্ট লিংকে এবং ফরম সংগ্রহ করে নিজেদের তথ্য সরবরাহ করবে। ব্যানবেইস নভেম্বর থেকে প্রাপ্ত তথ্যগুলো যাচাই-বাছাই ও সর্টিং করবে।

জরিপ পরিচালনা প্রতিষ্ঠানের এই ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা জরিপে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে অংশগ্রহণ করার জন্য পুন:আহ্বাণ জানিয়েছেন।

এর আগে ২০১৫ সালে সারাদেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ওপর অনলাইনে যে জরিপ চালায় বাংলাদেশ ব্যানবেইস, সেখানে দেখানো হয় বাংলাদেশ গত ৩৩ বছরে মাধ্যমিক থেকে উচ্চশিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা বেড়েছে ১৬ হাজার ৯১০টি। প্রতিষ্ঠান বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে শিক্ষার্থীর সংখ্যাও। তবে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বাড়ার সঙ্গে মান সেভাবে বাড়েনি।

গত বছরের মার্চে প্রকাশিত এই ‘বাংলাদেশ শিক্ষা পরিসংখ্যান ২০১৫’ তে আরো বলা হয়, ১৯৮২ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত মাধ্যমিক থেকে উচ্চশিক্ষা স্তরের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বৃদ্ধির একটি তালিকা প্রকাশ করে। এ সময়ে সবচেয়ে বেশি বেড়েছে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা। ১৯৮২ সালে কারিগরি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ৯৩টি বেড়ে ২০১৫ সালে তা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ২২৭টিতে। ৩৩ বছরে মাধ্যমিক স্কুল ৮ হাজার ৯৬০ থেকে বেড়ে হয়েছে ১৯ হাজার ৭২৬, কলেজ ৫০৯টি থেকে বেড়ে হয়েছে ৪ হাজার ১১৩টি। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় সাতটি থেকে বেড়ে হয়েছে ৩৮টি। ১৯৯০ সালের আগে প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয় না থাকলেও এখন দেশে ৯১টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে। তবে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ওপর ব্যানবেইস জরিপ পরিচালনা না করার কারণে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তথ্য প্রতিষ্ঠানটি দিতে পারেনি।

এ বিষয়ে ব্যানবেইসে পরিচালক পরিচালক মো. ফসিউল্লাহ বলেন, চাহিদার সঙ্গে সবকিছুর জোগান বাড়বে সেটিই স্বাভাবিক। ১৯৮২ সালের পর থেকে বাংলাদেশ জনসংখ্যা বেড়েছে প্রায় দ্বিগুণ। এই বিশাল জনগোষ্ঠীকে শিক্ষা দিতে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোক্তা এগিয়ে এসেছে। চাহিদার আলোকেই এই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেড়েছে মনে করেন তিনি। তিনি জানান, যে পরিমাণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বেড়েছে সে পরিমাণ মানসম্মত শিক্ষক বাড়েনি। একই সঙ্গে শিক্ষার মানও বাড়েনি।

শিক্ষা রিপোর্টে দেখা যায়, শিক্ষার বিভিন্নস্তরের মধ্যে সরকারি কলেজগুলোতে ছাত্র-শিক্ষকের অনুপাতের বৈষম্য সবচেয়ে বেশি। সরকারি কলেজে ১০৫ জন ছাত্রের জন্য শিক্ষক রয়েছেন একজন, অর্থাৎ এ ক্ষেত্রে অনুপাত ১:১০৫। ৩০২টি সরকারি কলেজে শিক্ষার্থী ১৩ লাখ ৫৬ হাজার ৯৬২ ও শিক্ষক ১২ হাজার ৯২৬ জন। বেসরকারির চেয়ে সরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে শিক্ষকের তুলনায় ছাত্রের সংখ্যা অনেক বেশি। প্রাথমিক সরকারি বিদ্যালয়ে একজন শিক্ষকের বিপরীতে ছাত্র ৪৩, সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে একজন শিক্ষকের বিপরীতে শিক্ষার্থী ৪১, মাদরাসায় একজন শিক্ষকের বিপরীতে ছাত্র ৮৪ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে ৪০ শিক্ষার্থীর বিপরীতে শিক্ষক একজন।

অথচ ২০১০ সালে জাতীয় শিক্ষানীতিতে ৩০ ছাত্রের জন্য একজন শিক্ষক নিশ্চিত করতে হবে। অন্যদিকে মাধ্যমিকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর অনুপাত দিন দিন বেড়েই চলছে। রিপোর্টে বলা হয়েছে, মাধ্যমিক স্তরে ২০১১ সালে ছাত্র-শিক্ষক অনুপাত ছিল ১:৩০, ২০১২ সালে ১:৩৬, ২০১৩ সালে ১:৩৭ ও ২০১৪ সালে এসে দাঁড়ায় ১:৩৯।

তবে গত এক দশকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার উল্লেখযোগ্য হারে বেড়েছে। ২০১০ সালে ৫৯ দশমিক ২১ শতাংশ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে কম্পিউটার থাকলেও ২০১৫ সালের পরিসংখ্যান অনুযায়ী সেখানে ৮২ দশমিক ২১ শতাংশ বিদ্যালয়ে এ সুবিধা রয়েছে। কম্পিউটার সুবিধা ২০১১ সালে ৬৫ দশমিক ০৬, ২০১২ সালে ৭০ দশমিক ৩ থেকে বেড়ে ২০১৪ সালে এসে দাঁড়িয়েছে ৮০ দশমিক ৩৫ শতাংশ। ২০১০ সালে মাধ্যমিকের ১৮ দশমিক ১৮ শতাংশ প্রতিষ্ঠানে ইন্টারনেট সংযোগ থাকলেও গত বছর তা ৭২ দশমিক ৯৮ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। ২০১২ সাল থেকে মাধ্যমিক স্কুলে মাল্টিমিডিয়া সুবিধা অন্তর্ভুক্ত হচ্ছে। বর্তমানে ৭১ দশমিক ৯০ শতাংশ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়া শ্রেণিকক্ষ রয়েছে।

ব্যানবেইসের পরিসংখ্যানে আরো দেখানো হয়, দেশের মোট ২৬ হাজার ৭৬টি প্রতিষ্ঠানের ৪ লাখ ৭৯ হাজার ২৮৫ শিক্ষক-কর্মচারী এমপিও (সরকারি বেতন-ভাতার অংশ) পাচ্ছেন। প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে স্কুল ১৬ হাজার ১০২, মাদরাসা ৭ হাজার ৬১১ ও কলেজ রয়েছে ২ হাজার ৩৬৩টি। এমপিওপ্রাপ্তদের মধ্যে শিক্ষক তিন লাখ ৭৭ হাজার ৫৬৮ জন ও কর্মচারী এক লাখ এক হাজার ৭১৭ জন।

About amarbangla

amarbanglanews

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *