বুধবার , ২০ মার্চ ২০১৯ | দুপুর ১২:১২

এইমাত্র পাওয়া:

৥ আমার বাংলা TV: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আজ চার্জ শুনানি ৥
৥ আমার বাংলা TV: যশোর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে ৥
৥ আমার বাংলা TV: কক্সবাজারে মহেশখালীতে সড়ক দুর্ঘটনা, নিহত ২ ৥
৥ আমার বাংলা TV: আর কত সময় লাগবে তনু হত্যার তদন্ত ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোড ও মতিঝিলের ব্যাংক কলোনিতে আগুন  ৥
৥ আমার বাংলা TV: আমি কিছু করিনি’ আকুতি জানিয়েও রেহাই পায়নি শিশুটি ৥
৥ আমার বাংলা TV: গোপালগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় মোটর সাইকেলের ৩ আরোহী নিহত ৥
৥ আমার বাংলা TV: ভিসির সাক্ষাৎ মিলল না ৫ ঘণ্টার অবস্থানেও ডাকসুর পুনর্নির্বাচন দাবি ৥
৥ আমার বাংলা TV: বিশ্বকাপ ফাইনালও পাকিস্তানকে ছেড়ে দেবে ভারত ৥
৥ আমার বাংলা TV: ব্রাহ্মণবাড়িয়া চালু হলো ‘প্রথম পর্যটন ভিত্তিক অগমেন্টেড রিয়েলিটি অ্যাপ’ এআর ৥
৥ আমার বাংলা TV: সিরাজগঞ্জে জের ধরে আ’লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম ৥
৥ আমার বাংলা TV: ফেনীতে ঢাকা ব্যাংকের ৫০ কোটি টাকা নিয়ে ব্যাংক কর্মকর্তা উধাও ৥
৥ আমার বাংলা TV: গৌরীপুরে ১৫ টাকার বরাদ্দে শিশুদের কপালে জুটলো ৬০ পয়সার চকলেট ৥
৥ আমার বাংলা TV: আর্জেন্টিনার হয়ে অনুশীলন করলেন লিওনেল মেসি ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীর বাড্ডায় বোনের সামনে ভাইকে গুলি করে হত্যা ৥
৥ আমার বাংলা TV: জিয়া ভোটের রাজনীতি ধ্বংস করেছেন: প্রধানমন্ত্রী ৥
৥ আমার বাংলা TV: ডিজিটাল ফাইলে অনীহা সরকারি কর্মকর্তাদের ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীর প্রগতী সরণিতে বাস পিষে মারল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে ৥

জাহালমের কারাভোগে দুদককে দায় নিতেই হবে।

আমার বাংলা TV: বিনা অপরাধে জাহালমের তিন বছর কারাভোগ সংক্রান্ত মামলার শুনানিতে দুদক আইনজীবীকে হাইকোর্ট বলেছেন, দুদক যখন জানতে পারল জাহালম নির্দোষ, তখন তার জামিন করানো উচিত ছিল। এর দায় দুদককে নিতেই হবে। ‘যে বিড়াল ইঁদুর ধরতে পারে না, সে বিড়াল থাকার দরকার নেই।’বুধবার বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহসান ও বিচারপতি কামরুল কাদেরের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এমন মন্তব্য করেন। একই সঙ্গে আদালত আগামী ১০ এপ্রিল পরবর্তী শুনানির দিন ঠিক করেন।শুনানিতে হাইকোর্ট আরও বলেছেন, ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় কতজন ব্যাংক অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দেয়া হয়েছে? আমরা সব দেখব। আদালত সোনালী ব্যাংকের সাড়ে ১৮ কোটি টাকা ঋণ জালিয়াতি সংক্রান্ত ৩৩টি মামলার সব কাগজপত্র দুর্নীতি দমন কমিশনকে (দুদক) জমা দেয়ার নির্দেশ দেন।

প্রসঙ্গত, সোনালী ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতির ঘটনায় দুদকের করা ৩৩ মামলায় বিনা অপরাধে তিন বছর কারাভোগ করেছেন টাঙ্গাইলের পাটকল শ্রমিক জাহালম। ঘটনাটি পত্রিকায় প্রকাশের পর সেটি একজন আইনজীবী হাইকোর্টের নজরে আনেন। গত ৩ ফেব্রুয়ারি শুনানি শেষে আদালত সোনালী ব্যাংকের অর্থ জালিয়াতির ঘটনায় দুদকের মামলা (৩৩ মামলা) থেকে জাহালমকে অব্যাহতি দিয়ে সেদিনই মুক্তি দিতে নির্দেশ দেন। ওইদিন রাতেই গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে মুক্তি পান জাহালম।মঙ্গলবার এ মামলায় দুদকের পক্ষে হাইকোর্টে হলফনামা জমা দেন আইনজীবী খুরশীদ আলম খান। বুধবার শুনানির শুরুতেই সোনালী ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতির মামলায় জাহালমকে কীভাবে ২৬ মামলার আসামি করা হয়, আবার দুদকের অধিকতর তদন্তে জাহালম কীভাবে নির্দোষ প্রমাণিত হলেন- এসব ব্যাপারে হলফনামা থেকে আদালতকে পড়ে শোনান।

দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকায় বুধবার প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন তুলে ধরে দুদক আইনজীবী খুরশীদ আলম খান আদালতকে বলেন, মামলা এখনও বিচারাধীন অথচ পত্রিকাটি দুদককে দায়ী করে রিপোর্ট করেছে। ড. শাহদীন মালিক জাহালমকে নিয়ে একটি কলাম লিখেছেন। দুদকের পক্ষ থেকে প্রতিবাদ দেয়া হয়েছে কিন্তু ছাপানো হয়নি। মামলা বিচারাধীন রেখে কাউকে কি দায়ী করা যায়? আদালত বলেন, কোনো মামলা বিচারাধীন অবস্থায় মন্তব্য করা ঠিক নয়।আইনজীবীর উদ্দেশে আদালত বলেন, ‘দুদককে স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে। সুপারিশের মধ্যে না থেকে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। দুদক একটা জাতীয় প্রতিষ্ঠান। দুদক সম্পর্কে নেতিবাচক ধারণা হোক, তা আমরা চাই না। কিন্তু দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থার উন্নতি হচ্ছে। আগে দুর্নীতিবাজদের মানুষ ঘৃণা করত। আমাদের নৈতিক অধঃপতন হয়েছে।’

এ সময় দুদকের আইনজীবী বলেন, সোনালী ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতি সংক্রান্ত মামলাগুলোর অধিকতর তদন্ত প্রতিবেদন বিচারিক আদালতে জমা দেয়া হয়। একই সঙ্গে জাহালমের বিরুদ্ধে থাকা অভিযোগ প্রত্যাহার চেয়েও বিচারিক আদালতে আবেদন করা হয়। হলফনামা থেকে তথ্য তুলে ধরে আইনজীবী আদালতকে বলেন, ব্যাংক কর্মকর্তাসহ সাক্ষীরা জাহালমকে ছালেক বলে শনাক্ত করেন। তবে অধিকতর তদন্তে জানা যায়, প্রকৃত আসামি ছালেকের বাড়ি ঠাকুরগাঁও।এ সময় আদালত জানতে চান, ‘কবে আপনারা জানলেন জাহালম নির্দোষ আর কবে আদালতে অধিকতর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিলেন?’ তিনি জানান, অধিকতর তদন্ত প্রতিবেদন তিনি আদালতে নিয়ে এসেছেন। এগুলো সবই তিনি আদালতে জমা দেবেন।তখন আইনজীবীর উদ্দেশে আদালত বলেন, ‘যখন আপনারা জানতে পারলেন জাহালম নির্দোষ, তখন আপনাদের উচিত ছিল জাহালমের জামিনের ব্যবস্থা করা। জাহালম বলে আসছেন, তিনি নির্দোষ। পিপিরা জানলেন কিন্তু কোনো পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। এর দায় আপনাদের নিতেই হবে।’

তখন খুরশীদ আলম খান বলেন, জাহালমকে যে ২৬ মামলার আসামি করা হয়েছে, সেই সংক্রান্ত সব কাগজপত্র তিনি আদালতে জমা দেবেন। আদালত তখন বলেন, ‘সোনালী ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতির ঘটনার ৩৩টি মামলার সব কাগজপত্র আদালতে জমা দেবেন। আমরা সব দেখব।’আদালত আরও বলেন, ‘কেউ চায় না, দুদক সম্পর্কে মানুষের ধারণা খারাপের দিকে যাক। তবে দুদককেও পরিচ্ছন্ন (ক্লিন) হতে হবে।’ খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘চ্যানেল ২৪-এ জাহালমের বিষয়ে রিপোর্ট আসার পর জাহালম যে নির্দোষ সে বিষয়ে দুদক তদন্ত কর্মকর্তা নিয়োগ দেয়। সে তদন্তে জাহালম যে নির্দোষ তা উঠে আসে। তদন্তে দেখা গেছে, সে অভিযুক্ত না। তাই আমরা তো বিষয়টি নিয়ে সঠিক পথেই আছি।’

তখন আদালত বলেন, ‘চ্যানেল ২৪-এ রিপোর্ট হওয়ার আগে তিনি (তদন্ত কর্মকর্তা) কী করেছেন? দুদক একটি স্বাধীন প্রতিষ্ঠান। আপনাদের অনেক স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে। যে বিড়াল ইঁদুর ধরতে পারে না, সেই বিড়াল থাকার দরকার নেই।’ জবাবে দুদক আইনজীবী বলেন, ‘আমাদেরও সীমাবদ্ধতা আছে।’ আদালত বলেন, ‘আগে অনেকেই দুর্নীতিকে ঘৃণা করত। কিন্তু এখন এই অবস্থার অবক্ষয় হচ্ছে।’এরপর দুদক আইনজীবী খুরশীদ আলম খান বলেন, ‘সোনালী ব্যাংক ও বাংলাদেশ ব্যাংকের সাক্ষ্য-প্রমাণের ওপর ভিত্তি করে জাহালমকে নিয়ে আমরা তদন্ত করেছি।’ আদালত তখন বলেন, ‘আপনারা সেসব তথ্য কি যাচাই-বাছাই করবেন না? আপনারা রিপোর্টে বলছেন, জাহালম ১৮ ব্যাংক থেকে লোন নিয়েছে। কিন্তু এখন ২টি ব্যাংককে মামলায় পক্ষভুক্ত করতে চাচ্ছেন?’ দুদক আইনজীবী বলেন, ‘আমাদের কাছে মামলার সব ফাইল আছে। একটু সময় দিন, সব আপনাদের দেব।’

ওই সময় আদালত দুদক আইনজীবীর কাছে জানতে চান, ‘ব্রাক ব্যাংকের একজনকে সাক্ষী বানালেন, কিন্তু আসামি করলেন না কেন? আপনারা জাহালমের মামলাটি তদন্ত করেছেন কিনা?’ দুদক আইনজীবী বলেন, ‘করেছি। তদন্ত শেষ পর্যায়ে আছে।’ আদালত জানতে চান, ‘জাহালম যে নির্দোষ, তা কবে জানতে পারলেন?’ জবাবে দুদক আইনজীবী বলেন, ‘চ্যানেল ২৪ থেকে জানার পর গত ২৭ ফেব্রুয়ারি থেকে তদন্ত করার পর তার নির্দোষের বিষয়ে জানতে পারি।’আদালত বলেন, ‘তদন্ত করে যখন দেখলেন সে নির্দোষ, তখন তাকে প্রসিকিউশন ছেড়ে দিল না কেন? তদন্তের পর আপনাদের উচিত ছিল তার জামিন দেয়া। এরপরও মামলার শুনানিকালে আদালতে ও আপনাদের কাছে সে বারবার বলেছে- আমি জাহালম, আবু সালেক না। তারপরও তার জামিনের ব্যবস্থা করলেন না। তাহলে তার বিরুদ্ধে কিসের ভিত্তিতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করলেন? এর দায় আপনাদের নিতে হবে।’এ সময় দুদক আইনজীবী বলেন, ‘আমাদের সময় দিন। আমরা সব কাগজ-প্রমাণ আদালতে দাখিল করব। আপনারা এখন এ মামলায় দুটি ব্যাংককে পক্ষভুক্ত করে নিন।’ তখন আদালত বলেন, ‘আপনারা পিক অ্যান্ড চুজ করছেন।’

গত জানুয়ারিতে একটি পত্রিকায় জাহালমের বিনা দোষে কারাভোগ নিয়ে একটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। ওই প্রতিবেদন আদালতের নজরে আনেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী অমিত দাসগুপ্ত। পরে আদালত স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে রুল জারি করেন। জাহালমের আটকাদেশ কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, জানতে চাওয়া হয় রুলে। প্রতিনিধিকে আদালতে হাজির থাকার নির্দেশ দেন।সে নির্দেশ অনুযায়ী ৩ ফেব্রুয়ারি দুদক চেয়ারম্যানের প্রতিনিধি হিসেবে দুদকের মহাপরিচালক (তদন্ত) মোস্তাফিজুর রহমান, মামলার বাদী আবদুল্লাহ আল জাহিদ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের যুগ্ম সচিব সৈয়দ বেলাল হোসেন এবং আইন সচিবের প্রতিনিধি সৈয়দ মুশফিকুল ইসলাম আদালতে হাজির হন। শুনানি শেষে আদালত সোনালী ব্যাংকের অর্থ জালিয়াতির ঘটনায় দুদকের মামলা (৩৩ মামলা) থেকে জাহালমকে অব্যাহতি দিয়ে সেদিনই মুক্তি দিতে নির্দেশ দেন।

ওইদিন রাতেই গাজীপুরের কাশিমপুর কারাগার থেকে মুক্তি পান জাহালম। আদেশের আগে সেদিন আদালত বলেন, ‘কোনো নির্দোষ ব্যক্তিকে এক মিনিটও কারাগারে রাখার পক্ষে আমরা না। এই ভুল তদন্তে কোনো সিন্ডিকেট জড়িত কি না, সিন্ডিকেট থাকলে কারা এর সঙ্গে জড়িত, তা চিহ্নিত করে আদালতকে জানাতে হবে। না হলে আদালত এ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করবে। তাছাড়া এ ঘটনায় দুদক কোনোভাবেই দায় এড়াতে পারে না।’দুদকের তদন্ত : বিনা অপরাধে জাহালমের তিন বছর কারাভোগের ঘটনায় তদন্তকারী কর্মকর্তাদের কোনো গাফিলতি ছিল কি না, সেটি তদন্ত করার জন্য গঠিত কমিটি কাজ করছে বলে জানিয়েছেন দুদক সচিব মুহাম্মদ দিলোয়ার বখ্ত। বুধবার তিনি সাংবাদিকদের বলেন, কমিটি পূর্ণাঙ্গ তদন্ত প্রতিবেদন তৈরির জন্য মঙ্গলবার কমিশনের কাছে সময়ের আবেদন করেছে। কমিশন তাদের কতদিনের সময় দেয় সেটা এখনও ঠিক হয়নি।

তিনি জানান, তদন্ত কমিটি আরও সময় বৃদ্ধির আবেদন করার ফলে তদন্ত প্রতিবেদন পেতে এখনও ১০-১৫ দিন সময় লাগতে পারে। আমরা আশা করছি, আগামী ১০-১৫ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন পেয়ে যাব। দুদক সচিব বলেন, তদন্ত প্রতিবেদন পেলে প্রকৃতপক্ষে দুদকের কারও গাফলতি ছিল কি না, জানা যাবে এবং তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।জাহালমের ঘটনায় দুদকের গাফিলতি খতিয়ে দেখতে গত ৪ ফেব্রুয়ারি দুদকের পরিচালক (লিগ্যাল) আবুল হাসনাত মো. আবদুল ওয়াদুদকে প্রধান করে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দুদক। পরে তার সঙ্গে আরও একজন পরিচালককে সংযুক্ত করে নেয়া হয়। মঙ্গলবার দুদকের পক্ষ থেকে হাইকোর্টে একটি এফিডেভিট দাখিল করে দুদক দাবি করে, জাহালমের ঘটনায় তাদের দায় নেই।

আমার বাংলা নিউজ  / ০ ৭ মার্চ / ২০১৯

 

 

About amarbangla

amarbanglanews

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com