বুধবার , ২০ মার্চ ২০১৯ | দুপুর ১২:১০

এইমাত্র পাওয়া:

৥ আমার বাংলা TV: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আজ চার্জ শুনানি ৥
৥ আমার বাংলা TV: যশোর জেলা ছাত্রলীগের কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয়েছে ৥
৥ আমার বাংলা TV: কক্সবাজারে মহেশখালীতে সড়ক দুর্ঘটনা, নিহত ২ ৥
৥ আমার বাংলা TV: আর কত সময় লাগবে তনু হত্যার তদন্ত ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোড ও মতিঝিলের ব্যাংক কলোনিতে আগুন  ৥
৥ আমার বাংলা TV: আমি কিছু করিনি’ আকুতি জানিয়েও রেহাই পায়নি শিশুটি ৥
৥ আমার বাংলা TV: গোপালগঞ্জে ট্রেনের ধাক্কায় মোটর সাইকেলের ৩ আরোহী নিহত ৥
৥ আমার বাংলা TV: ভিসির সাক্ষাৎ মিলল না ৫ ঘণ্টার অবস্থানেও ডাকসুর পুনর্নির্বাচন দাবি ৥
৥ আমার বাংলা TV: বিশ্বকাপ ফাইনালও পাকিস্তানকে ছেড়ে দেবে ভারত ৥
৥ আমার বাংলা TV: ব্রাহ্মণবাড়িয়া চালু হলো ‘প্রথম পর্যটন ভিত্তিক অগমেন্টেড রিয়েলিটি অ্যাপ’ এআর ৥
৥ আমার বাংলা TV: সিরাজগঞ্জে জের ধরে আ’লীগ নেতাকে কুপিয়ে জখম ৥
৥ আমার বাংলা TV: ফেনীতে ঢাকা ব্যাংকের ৫০ কোটি টাকা নিয়ে ব্যাংক কর্মকর্তা উধাও ৥
৥ আমার বাংলা TV: গৌরীপুরে ১৫ টাকার বরাদ্দে শিশুদের কপালে জুটলো ৬০ পয়সার চকলেট ৥
৥ আমার বাংলা TV: আর্জেন্টিনার হয়ে অনুশীলন করলেন লিওনেল মেসি ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীর বাড্ডায় বোনের সামনে ভাইকে গুলি করে হত্যা ৥
৥ আমার বাংলা TV: জিয়া ভোটের রাজনীতি ধ্বংস করেছেন: প্রধানমন্ত্রী ৥
৥ আমার বাংলা TV: ডিজিটাল ফাইলে অনীহা সরকারি কর্মকর্তাদের ৥
৥ আমার বাংলা TV: রাজধানীর প্রগতী সরণিতে বাস পিষে মারল বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রকে ৥

উৎস উদ্ঘাটন না করেই মামলার অভিযোগপত্র।

আমার বাংলা TV: চট্টগ্রামে পুলিশের এসআই খন্দকার সাইফ উদ্দিনের বাসা থেকে উদ্ধার ইয়াবার উৎস বের করতে পারেননি তদন্ত কর্মকর্তা। এমনকি এসব ইয়াবার গন্তব্যস্থল কোথায় ছিল, তা-ও ওঠে আসেনি তদন্তে।তদন্ত অসম্পূর্ণ রেখে সম্প্রতি এ মামলায় আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। আদালতে দেয়া অভিযোগপত্রে এমন ‘ফাঁকফোকর’ রাখা রয়েছে, যা দিয়ে পার পেয়ে যেতে পারেন পুলিশ কর্মকর্তা সাইফ।২০১৮ সালের ৩০ জুলাই রাতে নগরীর বাকলিয়া থানার পশ্চিম বাকলিয়া হাফেজনগর এলাকার একটি বাসার দরজা ভেঙে ১৩ হাজার ৫০০ পিস ইয়াবা জব্দ করে র‌্যাব। এর আগে বাড়ির মালিকের ছেলে নাজিম উদ্দিন মিল্লাতকে ৬০০ পিস ইয়াবাসহ গ্রেফতার করা হয়। পাশাপাশি ওই বাসা থেকে পুলিশের ইউনিফর্ম, মাদক বিক্রির ২ লাখ ৩১ হাজার টাকা এবং একটি মোটরসাইকেলও জব্দ করা হয়। র‌্যাব বলছে, এসআই সাইফ ওই বাসাটি ভাড়া নিয়ে ইয়াবা ব্যবসা করতেন।তবে তিনি পরিবার নিয়ে কল্পলোক আবাসিক এলাকায় থাকতেন। সাইফের সহযোগী ছিল গ্রেফতার নাজিম। ওই সময় এসআই সাইফ বাকলিয়া থানাধীন চাকতাই পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ হিসেবে কর্মরত ছিলেন। এ ঘটনার পর সাইফকে বরখাস্ত করা হয়। মামলা হয়েছে।

 ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় র‌্যাব-৭ চট্টগ্রামের উপসহকারী পরিচালক নাজমুল হুদা বাদী হয়ে নাজিম ও পলাতক এসআই সাইফকে আসামি করে বাকলিয়া থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে সম্প্রতি নাজিম ও সাইফকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র দিয়েছেন নগর গোয়েন্দা পুলিশের তৎকালীন পরিদর্শক রাজেশ বড়–য়া।এতে ২৬ জনকে সাক্ষী রাখা হয়েছে। অভিযোগপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে হাফেজনগর এলাকার ওই বাসায় প্রবেশের সময় নাজিমকে আটকের পর তার প্যান্টের পকেট থেকে ৬০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করে র‌্যাব। এরপর তার তথ্যমতে, এসআই সাইফের বাসার তালা ভেঙে ভেতরে থাকা টেবিলের ড্রয়ার থেকে ১৩ হাজার ৫০০ পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবা, টাকা ও অন্য আলামত এসআই সাইফের ভাড়া করা রুম থেকে উদ্ধার করার কারণে তাকে অভিযোগপত্রে আসামি করা হয়েছে বলে জানান তদন্ত কর্মকর্তা।

অভিযোগপত্রে আরও উল্লেখ করা হয়, সাইফের সোর্স হিসেবে কাজ করার পাশাপাশি বাসার বিভিন্ন কাজে সহযোগিতা করে নাজিম। বাসার চাবি থাকার সুবাদে সাইফের অবর্তমানে নাজিম ওই বাসায় অবাধে আসা-যাওয়া করতে পারত বলে গোপনীয় তদন্তে জানা যায়।সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মামলাটি বিচারের জন্য গেলে অভিযোগপত্রের উদ্ধৃতি দিয়ে আসামি সাইফের পক্ষ থেকে বলা হতে পারে, বাসাটি তার জিম্মায় থাকলেও অপর আসামি মিল্লাতের কাছেও চাবি ছিল। সাইফকে ফাঁসানোর জন্য তার অনুপস্থিতিতে নাজিম এসব ইয়াবা বাসায় রেখে দিয়েছেন।

র‌্যাব-৭ চট্টগ্রামের উপসহকারী পরিচালক নাজমুল হুদা জানান, অভিযোগপত্রে কী আছে, না আছে- আমি কিছুই জানি না। আমাকে এ বিষয়ে অবহিত করা হয়নি। আমি খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব।অভিযোগপত্র দাখিলের পর ৬ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রাম মহানগর আদালতের পঞ্চম বিচারিক হাকিম সরোয়ার জাহানের আদালতে আত্মসমর্পণ করে এসআই খন্দকার সাইফ। আদালত তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। তবে এ মামলায় নাজিম উদ্দিনকে রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলেও এসআই সাইফকে কোনো ধরনের জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি। এ কারণে জানা যায়নি এসব ইয়াবার উৎস ও গন্তব্য।

ইয়াবা উদ্ধারের পর থেকে সাইফকে রক্ষায় পুলিশের কিছু অসাধু কর্মকর্তা তৎপর রয়েছেন বলে অভিযোগ আছে। পুলিশ বলেছে, এসআই সাইফ ঘটনার দিন ৩০ জুলাই রাতে বাকলিয়া থানা-পুলিশের হেফাজতে ছিলেন। পরদিন সকালে তিনি অসুস্থ (বুকে ব্যথা) দাবি করলে তাকে ফোর্স দিয়ে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয় চিকিৎসার জন্য। সেখান থেকে তিনি ‘কৌশলে’ পালিয়ে যান।এ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা রাজেশ বড়ুয়া জানান, অভিযোগপত্র দেয়ার আগ পর্যন্ত সাইফ পলাতক ছিল। এ কারণে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা যায়নি। অভিযোগপত্র দেয়ার পর সাইফকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আদালতের অনুমতি প্রার্থনা ও সম্পূরক অভিযোগপত্র দেয়ার ক্ষেত্রে আইনগত সুযোগ নেই।

আমার বাংলা নিউজ  / ০৮ মার্চ / ২০১৯

 

About amarbangla

amarbanglanews

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

WP Facebook Auto Publish Powered By : XYZScripts.com